Fact Check: বাংলাদেশের ভিডিও অসত্যভাবে পশ্চিমবঙ্গের সাম্প্রদায়িক হিংসার ছবি বলে শেয়ার করা হচ্ছে

0 223

দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের একটা ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে এই দাবি সহ যে পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় কালীমাতা মন্দিরে পুজোর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন মুসলিমরা।

ফেসবুকে এই ভিডিও শেয়ার করে ক্যাপশন দেওয়া হচ্ছে, “কলকাতায় কালীমাতা মন্দিরে পুজো বন্ধ করার জন্য মুসলিমরা চিৎকার করছে। এখানে একদা শ্রীরামকৃষ্ণ পুজো করতেন। ওরা (‌তথাকথিত শান্তিপ্রেমীরা)‌ মন্দিরটি বন্ধ করে দিতে চায়। এদেশে কী হচ্ছে?‌ আমরা কোথায়?‌ ভারতের মানুষ শীঘ্রই জেগে উঠবেন এবং দেখবেন চারপাশে কী হচ্ছে।”

এই পোস্টের লিঙ্ক দেখুন এখানে (‌ post )‌। আরও এমন পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে (‌ hereherehere and here )‌।

FACT CHECK
নিউজমোবাইল এর ফ্যাক্ট চেক করে দেখেছে যে এই দাবি মিথ্যা।

অনুসন্ধান শুরু করে ভিডিওর কিফ্রেমগুলো বার করে নিয়ে আমরা রিভার্স ইমেজ সার্চ করে ২০২১–এর ১৬ অক্টোবর আপলোড করা একটি ইউটিউব  ভিডিও  (‌ YouTube video )‌  দেখতে পাই। তাতে ওই ভিডিওটি ছিল। তার বিবরণে লেখা ছিল যে ফেনিতে প্রার্থনার পর হিন্দু ও মুসলমানদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে এবং সেখানে পুলিশও ছিল।

‌https://youtu.be/2w_oei4fUMg

এর সূত্র ধরে কিওয়র্ড সার্চ করে আমরা ২০২১–এর ১৬ অক্টোবর আপলোড করা আর একটি ইউটিউব ( YouTube (  ভিডিও দেখতে পাই যেখানে বলা ছিল, “উগ্রবাদীরা ফেনি জেলায় জয় কালী মন্দির ও রামকৃষ্ণ মন্দির আক্রমণ করেছিল।”

এই ভাইরাল ভিডিওতে ৫৮ সেকেন্ডের মাথায় ‘‌লোটো’‌ বলে একটা দোকানের নাম দেখা যাচ্ছে। এর সূত্র ধরে গুগ্‌ল ম্যাপ–এ ( Google Maps)   গিয়ে আমরা দেখি ফেনি জেলায় লোটোর তিনটি দোকান আছে, যার মধ্যে দুটি মসজিদের কাছে অবস্থিত।

গুগ্‌ল ম্যাপ ( Google Maps ) ও ভাইরাল ভিডিওর ছবি মিলেয়ে দেখে বোঝা যায় ওটি ‘‌ফেনি বড় জামে মসজিদ’‌।

আমরা ২০২১–এর ১৭ অক্টোবর প্রকাশিত সংবাদ নিবন্ধে (‌ news article   )‌ দেখতে পাই এই ঘটনা নিয়ে লেখা হয়েছে:‌ “নিজের কর্মসূচির অংশ হিসেবে পরিষদের নেতাকর্মীরা ঢাকা–চট্টগ্রাম হাইওয়ের ওপর জয়কালী মন্দিরে জড়ো হন। কিছু যুবক বড় মসজিদের সামনে থেকে হিন্দু ভক্তদের ওপর ইট ছোঁড়ে এবং তারপর এর ওকে তাড়া করা শুরু হয়।”

কাজেই ওপরের তথ্য থেকে স্পষ্ট বাংলাদেশের ভিডিও অসত্যভাবে কলকাতার কালী মন্দিরের বায়রে মুসলিমদের বিক্ষোভ হিসেবে শেয়ার করা হচ্ছে।