Fact Check: এই ভিডিওটি পশ্চিমবঙ্গে পুলিশের ইসকন ভক্তদের লাঞ্ছনা করার দৃশ্য দেখায় না

0 521

ইউনিফর্ম পরা কিছু পুরুষ এবং গেরুয়া পোশাকে কিছু লোকের মধ্যে সংঘর্ষের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হচ্ছে এই দাবি করে যে এটি সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে তোলা হয়েছে, যেখানে পুলিশ ইসকন ভক্তদের উপর হামলা করেছিল।

ফেসবুক ইউজারেরা এই ভিডিওটি এই ক্যাপশন দিয়ে শেয়ার করেছেন:‌ “*ममता बानो के धर्म निरपेक्ष बंगाल में आपका स्वागत है। ISKON के भक्तों को बंगाल की पुलिस द्वारा “श्री मद् भागवत गीता” को बांटने पर पीटा गया।.”

(অনুবাদ: মমতা বানোর ধর্মনিরপেক্ষ বাংলায় স্বাগতম। শ্রী মদ ভাগবত গীতা বিতরণের কারণে ইসকন ভক্তদের বেঙ্গল পুলিশ মারধর করেছে)।

এখানে উপরের পোস্টের (‌ post)‌ লিঙ্ক দেওয়া হল।

FACT CHECK

নিউজমোবাইল পোস্টটির সত্যতা যাচাই করেছে এবং দাবিটি মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে।

ফেসবুকে-এ একই রকম পোস্ট খুঁজতে গিয়ে আমরা দেখতে পেলাম যে ২০১৮ (‌ 2018 )‌ এবং ২০১৯ (‌ 2019 )‌ সালেও একাধিক ব্যবহারকারী একই ভিডিও শেয়ার করেছিলেন একই ক্যাপশন সহ।

আমরা ২০১৮ সালে ইউটিউবে (‌ YouTube )‌ আপলোড করা একই ভিডিও পেয়েছি;‌ কিন্তু শিরোনাম অনুসারে ভিডিওটি গোয়ার।

গাড়ির গায়ে ‘গোয়া পুলিশ’ লেখা দেখতে পাচ্ছিলাম।

এর থেকে সংকেত গ্রহণ করে আমরা একটি কিওয়ার্ড অনুসন্ধান চালিয়েছি এবং ২০১৩ থেকে একটি রিডইট থ্রেডে (‌ Reddit thread )‌ একই ভিডিও পেয়েছি।

আমরা দ্য গোয়ান ভয়েস ( The Goan Voice)  নামে একটি ওয়েবসাইটে ২০০৮ সালের একই ঘটনার বিষয়ে একটি নিউজলেটারও পেয়েছি।

২৬শে নভেম্বর, ২০০৮-এ ‘হেরাল্ডগোয়া.‌ইন’-এ প্রকাশিত একটি নিবন্ধেও (‌ article  )‌ একই কথা জানানো হয়েছে।

আমরা ওহেরাল্ড.‌ইন (‌ oheraldo.in )‌ ওয়েবসাইটে ২০০৮–এ প্রকাশিত একটি নিবন্ধের আর্কাইভও পেয়েছি।

নিবন্ধ অনুসারে স্থানীয়দের অভিযোগের প্রতিক্রিয়ায় গোষ্ঠীটিকে থামানোর চেষ্টা করলে ‘হরে রাম হরে কৃষ্ণ’ সম্প্রদায়ের আট রুশ সদস্য গোয়ার মাপুসায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে তাদের সবাইকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

উপরের তথ্য থেকে বোঝা যাচ্ছে যে ভিডিওটি ২০০৮ সালের এবং এটি গোয়ায় তোলা। তাই এই ছবি সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে তোলা হয়েছে এমন দাবি জাল।