Fact Check: ‌‘‌দ্য ইউনাইটেড স্টেটস অফ ইন্ডিয়া’‌ জারনালে রানি লক্ষীবাইয়ের ছবি বিভ্রান্তিকর দাবি নিয়ে শেয়ার করা হচ্ছে

0 282

‘‌দ্য ইউনাইটেড স্টেটস অফ ইন্ডিয়া’‌ জারনালে রানি লক্ষীবাইয়ের ছবি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করা হচ্ছে এই দাবি করে যে কংগ্রেস যখন ক্ষমতায় ছিল তারা একটি বিশেষ সংস্করণের এই কপিটি উদ্ধার করতে পারেনি। পোস্টে এই দাবিও করা হয়েছে যে ছবিটি উদ্ধারের কৃতিত্ব মোদি সরকারের।

হিন্দি পোস্টে লেখা আছে:‌ “1926 से लेकर 2014 तक 88 साल में कांग्रेस ये अमेरिकी अखबार नही ढूंड पायी जिसमे रानी लक्ष्मीबाई को
”हेरोइन ऑफ दी वार” का खिताब दिया, लेकिन मुगलों का पूरा इतिहास जनता को पढा दिया
लेकिन ये कारनामा मोदी सरकर ने कर दिया”।

(অনুবাদ: ১৯২৬ থেকে ২০১৪ সাল, এই ৮৮ বছরে কংগ্রেস এই মার্কিন সংবাদপত্রটি খুঁজে পায়নি যেখানে রানি লক্ষীবাইকে সম্মান জানিয়ে বলা হয়েছিল ‘‌যুদ্ধের নায়িকা’‌। কিন্তু তারা আমাদের মুঘলদের পুরো ইতিহাস পড়িয়েছিল। এই কৃতিত্ব মোদি সরকারের।)

এই পোস্টের লিঙ্ক দেখুন এখানে (‌ post   )‌। আরও এমন পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে (‌ herehere and here  )‌।

FACT CHECK
নিউজমোবাইল এর ফ্যাক্ট চেক করে দেখেছে যে এই দাবি বিভ্রান্তিকর।

আমরা ছবিটির রিভার্স ইমেজ সার্চ করে পৌঁছই ‘‌সাউথ এশিয়ান আমেরিকান ডিজিটাল আরকাইভ’‌ (‌ South Asian American Digital Archive   )‌–এ, যেখানে ভারত নিয়ে আরও নানা ছবির সঙ্গে এটাও ছিল।

ওয়েবসাইটটিতে বিবরণে (‌ description   )‌ লেখা আছে:‌ ১৯২৬–এর মে মাসের সংস্করণে ‌দ্য ইউনাইটেড স্টেটস অফ ইন্ডিয়া–র কভার টাইটেল ছিল ‘‌রানি লক্ষীবাই:‌ ১৮৫৭ সালের স্বাধীনতার যুদ্ধের নায়িকা’‌, আর তার সঙ্গে ছিল লক্ষীবাইয়ের ছবি আর ১৮৫৭ সালের স্বাধীনতার যুদ্ধে তাঁর ভূমিকা নিয়ে একটি ব্লার্ব। সেই ব্লার্বে ভারতের ইতিহাস আর তা নিয়ে ব্রিটিশ প্রোপাগ্যান্ডার তুলনা টানা হয়েছিল। সেই ইস্যুতে আরও নিবন্ধ ও শিরানাম ছিল:‌ এক ব্রিটিশ লর্ডের ‘‌স্যাম্পলস অফ ব্রিটিশ জাস্টিস’‌, কর্তার সিংয়ের ‘‌ইন্ডিয়া অফ টু‌ডে’‌, ও ‘‌মহাত্মা গান্ধী অন ক্রিশ্চান মিশনারিজ’‌। এতে গদর পার্টির উধম সিংয়ের সংক্ষিপ্ত জীবনী ছিল। তাছাড়া ছিল ‘‌ইন্ডিয়া’‌জ প্রাইস ফর লিবার্টি’‌  শিরোনামে বব্বর অকালি শহিদদের ছবি (‌ক্যাপশন পাঞ্জাবিতে)‌।‌

আমরা দেখতে পাই এই ক্লিপিং ডিজিটালি আরকাইভ্‌ড হয়েছিল ২০১১ সালের ২৯ নভেম্বর, এবং শেষ মডিফাই করা হয় ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর। অর্থাথ যখন মডিফাই করা হয় তখনও কংগ্রেস ক্ষমতায় ছিল। কারণ বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার ক্ষমতায় আসে ২০১৪ সালে।

তাছাড়া ‘‌১৮৫৭ সালের বিদ্রোহ’‌ ও ‘‌রানি লক্ষীবাই’‌ অনেকদিন ধরেই ভারতে স্কুল পাঠক্রমে ছিল। এই নিয়ে এনসিইআরটি (‌ NCERT books )‌ বইয়ের পরিচ্ছেদগুলি দেখুন এখানে (‌ here )‌।

কাজেই স্পষ্টতই ভাইরাল ছবির সঙ্গের দাবি অসত্য ও বিভ্রান্তিকর।