Fact Check: দলিত যুবাদের ওপর আক্রমণের পুরনো ছবি বিভ্রান্তিকর দাবিসহ শেয়ার করা হচ্ছে

0 138

একটি ছবি যেখানে চারজন যুবককে দড়ি দিয়ে বাঁধা অবস্থায় দেখা যাচ্ছে তা ভাইরাল হয়েছে এই দাবিসহ যে ভারতে সংখ্যালঘুদের অবস্থা কী তা এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে।

ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করা হয়েছে বাংলায় এই ক্যাপশন দিয়ে:‌ এই হলো ভারতীয় মুসলমান ভাইদের অবস্থা, আল্লাহ আপনি তাদের হেফাজত করুন আমিন

এখানে ওপরের পোস্টের (‌ post )‌ লিঙ্ক দেওয়া হল। এমন আরও পোস্ট দেখুন (‌ here and here)‌।

FACT CHECK
নিউজমোবাইল এর সত্যতা যাচাই করে দেখেছে যে এই দাবি ‌বিভ্রান্তিকর।

রিভার্স ইমেজ সার্চ করে আমরা পাই ২০১৬ সালের ২৫ জুলাই প্রকাশিত একটি সংবাদ নিবন্ধে (‌ news article )‌ যেখানে এই ভাইরাল ছবিটি ছিল। প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল ছবিটি চারজন দলিত যুবকের, যাদের গুজরাতে স্বঘোষিত গো–সংরক্ষকেরা মারধর করেছিল।

আরও অনুসন্ধান করে আমরা ২০১৬ সালের ১৩ জুলাই প্রকাশিত আর একটি সংবাদ নিবন্ধে (‌ news report )‌ এই ভাইরাল ছবিটি পাই। সেখানে বলা ছিল স্বঘোষিত গো–সংরক্ষকদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে গরুর চামড়া ছাড়ানোর জন্য চারজন দলিত যুবককে মারধর করার দায়ে

আমরা স্ক্রোল (‌ Scroll )‌–এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনেও এই ছবিটি পাই। তার সঙ্গে লেখা ছিল  “২০১৬–র ১১ জুলাই উঁচু জাতি দরবার সম্প্রদায়ের ৪০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয় সর্বাইয়া জাতির সাতজনকে গির সোমনাথ জেলার উনা শহরে মৃত গরুর চামড়া ছাড়ানোর জন্য।”

এর সূত্র ধরে আমরা কিওয়র্ড সার্চ করে এই বিষয়ে আরও অনেক প্রতিবেদন দেখতে পাই। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার  (The Times of India ) প্রতিবেদনে বলা হয় স্থানীয় শিবসেনার লোকেরা চারজন দলিতকে উলঙ্গ করে এসইউভি–র সঙ্গে বেঁধে মারধর করেছিল গির সোমনাথ জেলার একটি গ্রামে। এই প্রতিবেদন বেরিয়েছিল ২০১৬–এর ১৩ জুলাই। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত একটি খবরও এখানে পাবেন (‌here)‌।

এই সব খবরেই বলা হয়েছিল অত্যাচারের শিকার যুবকেরা দলিত সম্প্রদায়ের এবং কোথাও এমন কোনও কথা বলা ছিল না যে এর সঙ্গে মুসলিমদের কোনও সম্পর্ক আছে।

কাজেই বলা যায় দলিত যুবাদের ওপর আক্রমণের পুরনো ছবি অসত্যভাবে ভারতের মুসলমানদের অবস্থা বলে চালানো হচ্ছে। কাজেই ভাইরাল দাবিটি বিভ্রান্তিকর।