Fact Check: এই ভিডিওতে কী লন্ডনের ব্যস্ত রাস্তায় একজনকে নমাজ পড়তে দেখা যাচ্ছে?‌ সত্য জানুন এখানে

0 312

ব্যস্ত রাস্তায় একজনের নমাজ পড়ার একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। দাবি করা হচ্ছে এতে লন্ডনের রাস্তায় একজনকে নমাজ পড়তে দেখা যাচ্ছে। এই দাবিও করা হচ্ছে যে এতে ভারতের ভবিষ্যত দেখা যাচ্ছে, কারণ ২১ সেপ্টেম্বর একজন মুসলিম মহিলা জোর করে একটি ফাঁকা বাড়িতে ঢুকে পড়ে নমাজ পড়েছিলেন।

এই ভিডিও পেসবুকে শেয়ার করার সময় হিন্দিতে ক্যাপশন দেওয়া হচ্ছে: “লন্ডন, যা ৭৫ বছর আগে মুসলিম দুনিয়ার অর্ধেক শাসন করত, এখন ইসলামের খপ্পরে পড়ে গেছে। মুসলিমদের প্রতি অতিরিক্ত উদারতা দেখানোর ফলে এখন ব্রিটেনে ৮৯ জন মুসলিম মেয়র ও ৪০/‌৫০ জন মুসলিম এমপি আছেন। কাজেই তারা যা চায় তাই পায়। লন্ডনের ব্যস্ত রাস্তায় একজন মোল্লা নমাজ পড়েন কোনও ভয় ছাড়াই। অন্য অর্থে, ইসলামের শক্তি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এই ভবিষ্যতটাই ভারতের হবে। আর হ্যাঁ, ২১ সেপ্টেম্বর একজন মুসলিম মহিলা জোর করে দিল্লির একটি ফাঁকা বাড়িতে ঢুকে পড়ে নমাজ পড়েছিলেন। এই ১ মিনিট ১২ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখুন একাকী মোল্লা কীভাবে লন্ডনের ব্যস্ত রাস্তায় নমাজ পড়ছেন।”

(Original Text: लंदन इस्लाम की चपेट में 75 वर्ष पहले आधी दुनिया पर राज करने वाला लंदन आज इस्लाम के चंगुल में फंस चुका है। इस्लाम के प्रति अत्यधिक उदारता दिखाने के कारण आज ब्रिटेन में 89 मुस्लिम महापोर ओर लगभग 40,/50 मुस्लिम सांसद बन गए हैं, इसलिए ये जो चाहते है करवा लेते हैं। एक अकेला मुल्ला लंदन की भीड़ भरी सड़क पर निडर होकर नमाज़ पढ़ रहा है। दूसरे मायने में इस्लाम की ताकत दिखा रहा है। यह आने वाले हिन्दुस्तान का भविष्य है,ओर हां अभी 21 सितंबर को एक मुस्लिम महिला दिल्ली के एक सूने मकान में घुसकर नमाज पढ़ते हुए पकड़ी जा चुकी है और चेनल पर ऐक मुल्ला उस मुस्लिम महिला की हिंदू घर में जबरदस्ती घुस कर नमाज पढ़ने को सही ठहराते हुए बोल चुका है कि हम तुम्हारे घर मे घुस कर नमाज पढेंगे। 1 मिनट 12 सेकंड के वीडियो में लंदन के व्यस्त सड़क पर एक अकेले मुल्ले को नमाज पढ़ते हुए देखें।)

এই পোস্টের লিঙ্ক দেখুন এখানে (‌ post   )‌। আরও এমন পোস্ট দেখুন এখানে (‌here and here )‌।

FACT CHECK
নিউজমোবাইল এর ফ্যাক্ট চেক করে দেখেছে যে এই দাবি অসত্য।

আমরা অনুসন্ধান শুরু করে কিওয়র্ড সার্চ (‌ keyword search )‌ করে এই ভাইরাল দাবির সমর্থনে কোনও বিশ্বাসযোগ্য মিডিয়া রিপোর্ট দেখতে পাইনি।

আমরা ভাইরাল ভিডিওর কিফ্রেমগুলো বার করে নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। এর থেকে আমরা পৌঁছই একটি তুর্কি সংবাদ ওয়েবসাইটে (‌ news website )‌ যেখানে এই ভিডিওটি রয়েছে এই ক্যাপশন দিয়ে,‌ “ইস্তানবুলের রাস্তার মাঝখানে বসে নমাজ পড়ার ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় বলা হল ‘‌কিবলাভ্রান্ত’‌।” এই ভিডিও আপলোড করা হয়েছে ২০২১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর।

আমরা দেখতে পাই (‌২০২১–এর সেপ্টেম্বরে প্রকাশিত)‌ একটি নিবন্ধেও (‌ article )‌ এমন ঘটনার কথা আছে যেখানে হেডলাইন হল, “তুরস্কে হাইওয়ের মাঝখানে বসে একজন প্রার্থনা করছেন।”

আরও অনুসন্ধান করে আমরা দেখতে পাই অনেক টুইটার ইউজার (‌ Twitter users )‌ এই ভিডিও শেয়ার করেছেন তুর্কি ভাষায় লেখা ক্যাপশন দিয়ে।

সেই ভিডিওতে দেখা যায় ৩ সেকেন্ডের মাথায় একটি হলুদ চ্যাক্সি চলে যায় যাতে লেখা আছে টিইটি ৫৭ ও ইটাক্সি। আমরা দেখতে পাই  আইটাক্সি ( iTaksi ) হল ইস্তানবুল মেট্রোপলিটন মিউনিসিপ্যালিটি (‌আইবিবি)‌–র অনলাইন ট্যাক্সি সার্ভিস।

আর একটি দাবি করা হয়েছে যে ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ একজন মুসলিম মহিলা জোর করে দিল্লির একটি ফাঁকা বাড়িতে ঢুকে পড়ে নমাজ পড়েছিলেন। আমরা কিওয়র্ড সার্চ (‌ keyword )‌ করে এর সমর্থনে কোনও বিশ্বাসযোগ্য মিডিয়া রিপোর্ট পাইনি।

কাজেই স্পষ্টতই ভাইরাল ভিডিওতে যে দাবি শেয়ার করা হচ্ছে তা অসত্য।