‌Fact Check: অখিলেশ যাদবের একজন ডাক্তারকে ভর্ৎসনা করার ২০২০ সালের ভিডিও মিথ্যা জাত-ভিত্তিক রঙ লাগিয়ে ভাইরাল

0 368

উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব একজন ডাক্তারকে ভর্ৎসনা করছেন এমন একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। দাবি করা হচ্ছে যে অখিলেশ উচ্চবর্ণের সম্প্রদায়ের সদস্য বলে জানতে পেরে ডাক্তারের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেছেন।

ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে এই ক্যাপশন দিয়ে:‌ “कन्नौज में वरिष्ठ चिकित्सक डॉ डी एस मिश्रा के साथ अखिलेश जी का ये बर्ताव उनकी मानसिकता को प्रदर्शित करता है , नाम पूंछने के बाद और ब्राह्मण होने के कारण अखिलेश जी ने जिस प्रकार से एक चिकित्सक को दुत्कारा है क्या ऐसी मानसिकता राजनैतिक दल के नेता की होनी चाहिए, क्या सपा मुखिया के लिए ब्राह्मण होना पाप है???”

(অনুবাদ: কনৌজের একজন সিনিয়র ডাক্তার ডঃ ডি এস মিশ্রের সঙ্গে অখিলেশজির এই আচরণ তাঁর মানসিকতার পরিচয় দেয়। নাম জিজ্ঞাসা করে তিনি একজন ব্রাহ্মণ বলে জানার পরে অখিলেশজি একজন ডাক্তারকে তিরস্কার করেছিলেন। এমন মানসিকতার ব্যক্তির কি রাজনৈতিক দলের নেতা হওয়া? ব্রাহ্মণ হওয়া কি এসপি মুখিয়ার জন্য পাপ?)

এখানে উপরের পোস্টের (‌ post )‌ লিঙ্ক দেওয়া হল।

Fact Check

নিউজমোবাইল পোস্টটির সত্যতা যাচাই করে দেখেছে পোস্টটি বিভ্রান্তিকর।

আমরা একটি কিওয়ার্ড অনুসন্ধান চালিয়ে ১৪ জানুয়ারী, ২০২০ তারিখের টিওআই (‌ TOI )‌-এর একটি প্রতিবেদনে একই ভিডিও পেয়েছি। ভিডিওটির শিরোনাম ছিল: এসপি সভাপতি অখিলেশ যাদব কনৌজের ডাক্তারকে ওয়ার্ড থেকে দূরে সরিয়ে দিয়েছেন, বলছেন ‘তুম ভাগ যাও’।

ভিডিওটির বর্ণনায় লেখা হয়েছে, “সমাজবাদী পার্টির সভাপতি অখিলেশ যাদব ‘তুম বাহার ভাগ যাও’ বলে এক মেডিকেল অফিসারকে হাসপাতালের ওয়ার্ড থেকে বের করে দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, ওই কর্মকর্তা সরকারের পক্ষ নিয়েছেন এবং তিনি একজন ক্ষুদ্র কর্মকর্তা মাত্র। কনৌজ বাস দুর্ঘটনায় আহতদের সঙ্গে দেখা করতে হাসপাতালে পৌঁছেছিলেন অখিলেশ যাদব। উত্তরপ্রদেশের কনৌজে একটি ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষে ১০ জানুয়ারি ৪০ জনেরও বেশি যাত্রী বহনকারী একটি বাসে আগুন ধরে যায়।”

একই ভিডিওটি ১৪ জানুয়ারী, ২০২০ তারিখে এএনআই (‌ ANI )‌ দ্বারাও আপলোড করা হয়েছিল এই ক্যাপশন সহ, “# দেখুন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব যিনি কনৌজ দুর্ঘটনায় আহতদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন, চিবরমৌয়ের একটি হাসপাতালে ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসারকে তিনি কথা বলার সময় রুম ছেড়ে যেতে বলেছেন। আহতদের ক্ষতিপূরণের পরিমাণ সম্পর্কে বলেছেন, “তুমি সরকারের পক্ষ নিতে পার না…বাহার ভাগ যাও।”

একই টুইটার সূত্রে এএনআই ( ANI   )‌ ভিডিওতে দৃশ্যমান ডাক্তারের একটি বিবৃতিও পোস্ট করা আছে। টুইটে লেখা আছে, “ডিএস মিশ্র, ইমার্জেন্সি মেডিক্যাল অফিসার, চিবরমৌ: আমি সেখানে উপস্থিত ছিলাম কারণ আমি রোগীদের চিকিৎসা করছিলাম। একজন রোগী বলেছিলেন যে তিনি ক্ষতিপূরণের চেক পাননি। আমি চেকটি যে দেওয়া হয়েছে তা স্পষ্ট করার চেষ্টা করেছি। এতে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশজি রেগে যান এবং আমাকে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে বলেন।(১৩ জানুয়ারি)।”

সুতরাং উপরোক্ত তথ্য থেকে এটা স্পষ্ট যে দুই বছরের পুরনো একটি ভিডিওকে মিথ্যা জাতপাতের রঙ লাগিয়ে শেয়ার করা হচ্ছে।