‌Fact Check: গুজরাটে বন্যায় কুমির ভেসে যাওয়ার পুরনো ভিডিও অসমের সঙ্গে মিথ্যাভাবে যুক্ত করা হয়েছে

0 609

অভূতপূর্ব বৃষ্টিপাতের ফলে অসমের (‌ Assam )‌ বেশ কিছু অংশে মারাত্মক বন্যা হয়েছে ও জল জমে গিয়েছে, যার ফলে ৪৫ লক্ষেরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এই প্রেক্ষাপটে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও শেয়ার করা হচ্ছে যাতে কিছু লোককে একটি আবাসিক এলাকার জলমগ্ন রাস্তায় একটি কুমিরকে নিয়ন্ত্রণে আনতে দেখা যায়। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা দাবি করছেন ছবিটি অসমের।

ভিডিওটি ফেসবুকে ক্যাপশন সহ শেয়ার করা হচ্ছে, “আজ কুমির শিলচর (অসম) টাউন পার আগায়া হে”।

ওপরের পোস্টের (‌ post )‌ লিঙ্ক পাওয়া যাবে এখানে।

FACT CHECK

নিউজমোবাইল উপরোক্ত দাবিটির সত্য-পরীক্ষা করেছে এবং এটি মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে।

ইনভিড টুল ব্যবহার করে আমরা ভাইরাল ভিডিও থেকে কিফ্রেমগুলি বের করেছি এবং একটি রিভার্স ইমেজ সার্চ করেছি৷ এই অনুসন্ধানটি আমাদের টাইমস অফ ইন্ডিয়ার (‌ Times of India )‌ ৪ আগস্ট, ২০১৯-এ প্রকাশিত একটি ভিডিও সংবাদ প্রতিবেদনে নির্দেশিত করে, যেখানে  একই রকম ভিজ্যুয়াল ছিল। ভিডিওর শিরোনামে লেখা ছিল, “ভাদোদরায় বৃষ্টি: জল জমার কারণে আবাসিক কমপ্লেক্সে ঢুকে পড়া কুমিরের সন্ত্রাস অব্যাহত রয়েছে।”

আরও অনুসন্ধান করে, আমরা ৭ আগস্ট, ২০১৯-এ ইউটিউবে (‌ YouTube )‌ আপলোড করা একই ভিডিও পেয়েছি, যার ক্যাপশন ছিল, “এনডিআরএফ  টিম কুমির ধরছে । এমন একটি বিপজ্জনক উদ্ধার অভিযান চালিয়েছিল এনডিআরএফ টিম।”

তারপর আমরা একটি কিওয়ার্ড অনুসন্ধান করেছি এবং অনেক সংবাদ নিবন্ধ ( news articles )  পেয়েছি যেগুলি ২০১৯ সালে একই ঘটনা রিপোর্ট ( reported ) করেছিল যে “ভারী বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত, গুজরাটের ভাদোদরা একটি নাটকীয় ‘উদ্ধার’‌ দেখেছিল – জলের স্তর বৃদ্ধির ফলে আটকে পড়া মানুষ বা পোষা প্রাণীদের নয়, একটা কুমিরের।”

আমরা ৪ আগস্ট, ২০১৯-এ এনডিটিভি (‌ NDTV )‌ প্রকাশিত একটি ভিডিও সংবাদ প্রতিবেদনও খুঁজে পেয়েছি, যেটিতে “গুজরাটের বন্যার রাস্তা থেকে রোমহর্ষক কুমির উদ্ধার”–এর একই রকম ভিস্যুয়াল রয়েছে।

উপরের তথ্য থেকে এটা স্পষ্ট যে গুজরাটের একটি পুরনো ভিডিওকে অসমের সাম্প্রতিক বন্যার সঙ্গে মিথ্যাভাবে যুক্ত করা হয়েছে।