Fact Check: মস্কোয় উদযাপনের একটি পুরনো ভিডিও ফ্রান্সের বলে শেয়ার করা হচ্ছে

0 780

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হচ্ছে যাতে দাবি করা হয়েছে যে রাস্তায় নামাজ পড়া মুসলমানদের বিশাল ভিড়ের কারণে ফ্রান্সের নাগরিকদের হাঁটার জায়গা নেই। পটভূমিতে ‘আজান’ ধ্বনিও শোনা যায়।

ভিডিওটি শেয়ার করার সময় হিন্দিতে ক্যাপশন দেওয়া হচ্ছে:‌ “25 साल पहले फ्रांस ‘लिबरल-मानवता’ का पाठ रट रहा था…अब उसे ‘सबक’ मिल रहा है आम फ्रांस के नागरिकों के पास चलने को रास्ता नहीं है”

(‌অনুবাদ: ২৫ বছর আগে ফ্রান্স ‘উদার-মানবতার’ পাঠ শিখছিল। এখন সে ‘পাঠ’ পাচ্ছে। সাধারণ ফ্রান্সের নাগরিকদের হাঁটার পথ নেই।)

এখানে উপরের পোস্টের (‌ post   )‌ লিঙ্ক দেওয়া হল।

FACT CHECK

নিউজমোবাইল উপরোক্ত দাবিটি সত্যতা যাচাই করেছে এবং এটি বিভ্রান্তিকর বলে প্রমাণিত হয়েছে।

ইনভিড টুল ব্যবহার করে আমরা ভাইরাল ভিডিও থেকে কিফ্রেমগুলি বের করেছি এবং রিভার্স ইমেজ সার্চ করেছি৷ এই অনুসন্ধানটি আমাদের একটি টুইটার (‌ Twitter )‌ পোস্টে নির্দেশিত করেছে যেটিতে ১৫ অক্টোবর, ২০১৩-এ একই রকম একটি ছবি রয়েছে। পোস্ট অনুসারে, ছবিটি মস্কোতে ইদ উদযাপনের।

আমরা যখন ভাইরাল ছবিটিকে টুইটার পোস্টের সঙ্গে মিলিয়ে দেখি, তখন আমরা বুঝতে পারি যে দুটি ছবি একই জায়গার।

আমরা তারপরে আরও অনুসন্ধান করে দেখেছি যে একটি রাশিয়ান (  Russian  )ওয়েবসাইটে ২০১৫ সালে “মুসলিমরা কি ইউরোপ জয় করেছে” বলে প্রশ্ন করে একটি আরও ভাল ছবি আপলোড করেছিল। আমরা বিজ্ঞাপনগুলির একটিতে এলাকা কোড নম্বর হিসাবে “৪৯৫” লেখাও লক্ষ্য করেছি। এটি থেকে একটি সংকেত নিয়ে আমরা অনুসন্ধান করেছি এবং পেয়েছি (‌ found    )‌ যে ৪৯৫, ৪৯৮ ও ৪৯৯ হল রাশিয়ার মস্কোর তিনটি এলাকা কোড।

আমরা গুগল ম্যাপে অনুসন্ধান করেছি এবং ভাইরাল ভিডিওতে দেখা মসজিদের সঙ্গে মস্কো ক্যাথিড্রালের (‌ Moscow Catherdral   মিল খুঁজে পেয়েছি। আমরা আলামিতে (‌ Alamy  )‌ আপলোড করা একই চিত্র পেয়েছি যে এটি প্রকৃতপক্ষে মস্কো ক্যাথিড্রাল মস্ক।

তদুপরি, আমরা একটি সংবাদ নিবন্ধ ( article  ) পেয়েছি যাতে বলা হয়েছে যে এই বছরও মস্কোতে ইদ উদযাপিত হয়েছে। এটি মস্কো ক্যাথিড্রাল মস্কের অনুরূপ চিত্র বহন করে। এছাড়াও বিভিন্ন সংবাদ ( news )    প্রতিবেদন অনুসারে, ফরাসি সরকার ২০১১ সালে রাস্তায় জনসাধারণের প্রার্থনা নিষিদ্ধ (‌ banned    )‌ করেছিল।

সুতরাং, উপরের তথ্য থেকে এটি স্পষ্ট যে রাশিয়ার একটি পুরনো ভিডিও ফ্রান্সের রাস্তায় মুসলমানদের নামাজ পড়া বলে মিথ্যাভাবে শেয়ার করা হচ্ছে।