Fact Check: ভাইরাল ছবিতে রাষ্ট্রপতি মুর্মুর সঙ্গে ইউপি–র প্রাক্তন মন্ত্রী থাকার মিথ্যা দাবি করা হয়েছে

0 87

দ্রৌপদী মুর্মু ২৫ জুলাই, ২০২২-এ ভারতের রাষ্ট্রপতি হন৷ তিনি ভারতীয় সংবিধানের সর্বোচ্চ পদে অধিষ্ঠিত প্রথম আদিবাসী মহিলা৷

২১শে জুন, ২০২২-এ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে উত্তরপ্রদেশের জলসম্পদ মন্ত্রী দীনেশ খটিকের লেখা পদত্যাগের একটি চিঠি ভাইরাল হয়েছিল। চিঠি অনুসারে, তিনি দলিত হওয়ায় তাঁর জলশক্তি বিভাগের কর্মকর্তাদের তাঁর সঙ্গে অন্যায় আচরণের কারণে তিনি তাঁর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন।

উপরের পটভূমিতে একজন ব্যক্তির সঙ্গে দ্রৌপদী মুর্মুর একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। দাবি করা হয়েছে যে ছবির লোকটি দীনেশ খটিক এবং তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে তাঁর পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

ছবিটি একটি ক্যাপশন সহ শেয়ার করা হয়েছে: “ഈ ജൂലൈ 20-ന് യോഗി ആദിത്യനാഥ് മന്ത്രിസഭയിലെ ജലവിഭവവകുപ്പ് മന്ത്രി ദിനേശ് ഖാത്തിക് തന്റെ മന്ത്രി സ്ഥാനം വലിച്ചെറിഞ്ഞ് യോഗി മന്ത്രിസഭയിൽ നിന്ന് പടിയിറങ്ങിപ്പോകുമ്പോൾ വളരെ വേദനയോടെ ജനങ്ങളോട് പറഞ്ഞത് ഇതായിരുന്നു : ”ദലിത് ആയതുകൊണ്ടാണ് മന്ത്രിസഭയിൽ എന്നെ മാറ്റിനിർത്തുന്നത്. മന്ത്രിയെന്ന നിലയിൽ എനിക്ക് യാതൊരു അധികാരവുമില്ല. ദലിത് സമൂഹത്തിൽ നിന്ന് വന്ന ഒരാൾ എന്ന നിലയിൽ എന്റെ മന്ത്രിസ്ഥാനം വെറുതെയായി. ഇതുവരെ ഒരു മന്ത്രിസഭാ യോഗത്തിലും പങ്കെടുപ്പിച്ചിട്ടില്ല. എന്റെ വകുപ്പിനെക്കുറിച്ച് ആരും ഒന്നും ചോദിച്ചിട്ടുമില്ല. ദലിത് സമുദായത്തെ തന്നെ അപമാനിക്കുന്നതിന് തുല്യമാണിത്..!” (‌ অনুবাদ: “২০শে জুলাই যোগী আদিত্যনাথের মন্ত্রিসভার জলসম্পদ মন্ত্রী দীনেশ খটিক তাঁর মন্ত্রীর পদ ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে বলেছিলেন: “যেহেতু আমি একজন দলিত, তাই আমাকে মন্ত্রিসভায় গুরুত্ব দেওয়া হয় না। মন্ত্রী হিসেবে আমার কোনও কর্তৃত্ব নেই। আমি এখন পর্যন্ত মন্ত্রিসভার কোনো বৈঠকে যাইনি। আমার বিভাগ সম্পর্কে কেউ কিছু জিজ্ঞাসা করেনি। এটা দলিত সম্প্রদায়কে অপমান করার সামিল..!”)

পোস্টের লিঙ্ক পাওয়া যাবে এখানে (‌ here )‌।

FACT CHECK
নিউজমোবাইল এর সত্যতা যাচাই করেছে, এবং এটি বিভ্রান্তিকর বলে মনে করেছে।
আমরা ভাইরাল ভিডিওতে থাকা লোকটিকে টাইমস অফ ইন্ডিয়াতে প্রকাশিত দীনেশ খটিকের (‌ Dinesh Khatik’s )‌ ছবির সাঙ্গে মিলিয়ে দেখেছি, এবং তাঁদের মধ্যে কোনও মিল খুঁজে পাইনি।

একই ছবি ২২ জুলাই, ২০২২-এ প্রগতিবাদী (‌ Pragativadi )‌ দ্বারাও আপলোড করা হয়েছিল৷ ছবির সঙ্গে যুক্ত শিরোনামটিতে লেখা হয়েছে: “ওড়িশা পদ্ম পুরস্কারপ্রাপ্তরা রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে অভিনন্দন জানান”

কলিঙ্গ টিভির ( Kalinga TV )   ২২ জুলাই, ২০২২ তারিখের একটি প্রতিবেদন অনুসারে ওডিশা থেকে পদ্ম পুরস্কারপ্রাপ্তদের একটি দল এবং আদিবাসী আইকনরা নয়া দিল্লিতে ভারতের ১৫তম এবং প্রথম আদিবাসী মহিলা রাষ্ট্রপতি হিসাবে তাঁর বিজয়ের জন্য নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। জানা গেছে, ভিডিওতে থাকা ব্যক্তি হলেন হলধর নাগ।

হলধর নাগ – ‘কোসলি’ ভাষার ৭১ বছর বয়সী লোককবি – ওডিশার বাসিন্দা।
সুতরাং, আমরা নিশ্চিত করে বলতে পারি যে ভাইরাল দাবিটি বিভ্রান্তিকর।